অটোপাস নিয়ে যা বলছেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা

0
করোনা মহামারীর কারণে প্রায় এক বছরের বেশি সময় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। বন্ধ রয়েছে সকল প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা কার্যক্রম। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কারণে বিপাকে পড়ছে লাখো শিক্ষার্থী। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় হাজার হাজার শিক্ষার্থী পড়েছে সেশন জটে। আটকে আছে বিভিন্ন  শিক্ষাবর্ষের পরীক্ষা,  কারও পরীক্ষা হলেও রেজাল্ট এর অপেক্ষা, আবার কোন কোন শিক্ষাবর্ষ আটকে আছে বিভিন্ন সেশন জটে।
শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ নিয়ে এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে শিক্ষার্থীদের মধ্যে নানা রকমের সমালোচনা শুরু হয়েছে। তারা এই মুহূর্তে মনে করছে যে অটো পাস তাদের মূল সমাধান হতে পারে। যেহেতু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা সম্ভব হয়ে উঠছে না সেহেতু শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবনকে স্বাভাবিক করতে সকল শিক্ষার্থীদের অটো প্রমোশনের মাধ্যম হতে পারে সমাধান। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অটো প্রমোশন নিয়ে শিক্ষার্থীরা যা বলছেন তা তুলে ধরা হলোঃ
  • অটো প্রমোশনের ফলে মহামারী ছড়ানো রোধকরণ কিছুটা সম্ভব হবে এবং শিক্ষার্থীদের জীবন হুমকিতে পড়বেনা।
  • পরীক্ষা নিলে পরবর্তী শ্রেণীতে উঠতে ব্যাপক সময়ের প্রয়োজন। তাই অটো প্রমোশনই হল সঠিক সমাধান।কারণ, পরীক্ষা দিলেই শুধু হবেনা। খাতা কাটতে হবে, রেজাল্ট যোগ করতে হবে, এবং তা প্রকাশ করতে হবে। এমনিতেই শিক্ষার্থীদের বছরের পর বছর সময় নষ্ট হয়েছে, তাই আমরা আর চাইনা সময় নষ্ট হোক।
  • করোনায় অনেক পরিবার অর্থাভাবে দিন কাটাচ্ছে, এর মধ্যে যদি পরীক্ষা নেয়া হয় তবে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর পরিবারকে আলাদা একটা খরচ বহন করতে হবে যেটা এই পরিস্থিতিতে অনেক কষ্টের।

আরও পড়ুনঃ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সােনালী সেবার মাধ্যমে ফি জমা সংক্রান্ত জরুরি বিজ্ঞপ্তি

  • শিক্ষার্থীদের নিয়মিত ক্লাস হয়নি, স্মার্টফোনের স্বল্পতার কারণে অনলাইনেও তারা ক্লাস করতে পারেনি। এরপর ঠিকমত অনলাইনে ক্লাস হয়নি। তাই সবার পড়াশোনার অবস্থায় আশানস্বরুপ ভালো না। সুতরাং এই পরিস্থিতিতে পরীক্ষা নিলে মেধা যাচাই হবে বলে মনে করিনা আমরা।
  • মেধাকে ১ বছর ধরে ঘরবন্দি করে রেখে, সেটা যাচাই করতে চাওয়াটা প্রকৃত মেধাযাচাই নয়, বরং শিক্ষাব্যবস্থায় মেধার সামঞ্জস্যহীনতার বহিঃপ্রকাশ হবে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে চলছে এসব নিয়ে অনেক আলোচনা ও সমালোচনা। যথাযথ কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের জন্য কি করবে তা নিয়েও অনেক শিক্ষার্থীদের রয়েছে কৌতুহল। 

শিক্ষার্থীরা যাতে তাদের শিক্ষাজীবন নিয়ে বিপাকে না পরে এ বিষয়টি দেখার জন্য  অনেকেই জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছে। হয়তো জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সকল শিক্ষার্থীদের জন্য আশানুরূপ কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করবে এটাই শিক্ষার্থীদের চাওয়া।  

পোষ্টটি লিখেছেন

এডু হেল্পস বিডি
এডু হেল্পস বিডি
এডু হেল্পস বিডি শিক্ষা বিষয়ক বাংলা কমিউনিটি ওয়েবসাইট। যার মূলমন্ত্র হাতের মুঠোয় শিক্ষামূলক সকল খবর। এডু হেল্পস বিডি এর অন্যতম উদ্দেশ্য হলো বাংলাদেশের সকল শিক্ষার্থীদের মধ্যে একটা সুন্দর কমিউনিটি তৈরি করা। পাশাপাশি পড়াশোনার প্রয়োজনীয় তথ্য সেবা ও সঠিক দিকনির্দেশনা নিশ্চিত করা ও লেখাপড়া সংক্রান্ত বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করা।